আদালতে গুলি করে হত্যা,জামিনে বের হওয়া ধর্ষককে

আদালতে গুলি করে হত্যা,জামিনে বের হওয়া ধর্ষককে

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুর দেওয়ানি আদালতের সামনে গত শুক্রবার। খবর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের।

নিহত যুবক ওই জওয়ানের মেয়েকে ২০২০ সালে অপহরণের পর ধর্ষণ করেছিলেন বলে অভিযোগ আছে। অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে ওই যুবকের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা বিচারাধীন।

নিহত যুবক বিহারের মুজাফফরপুরের বাসিন্দা। অপহরণ ও ধর্ষণের ওই মামলায় তিনি শুক্রবার গোরক্ষপুর দেওয়ানি আদালতে শুনানিতে অংশ নেওয়ার জন্য এসেছিলেন।

এ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে আদালতে আইনজীবীরা বিক্ষোভ করেন।

আইনজীবী সেখানে পৌঁছানোর আগেই বিএসএফের অবসরপ্রাপ্ত জওয়ান ভগবৎ সিং নিজের লাইসেন্সকৃত পিস্তল দিয়ে দিলশাদের মাথায় গুলি করেন। সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন দিলশাদ। ঘটনাস্থলেই নিহত হন তিনি।

এ ঘটনার পর পুলিশ ভগবৎ এবং তার ছেলেকে গ্রেফতার করেছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

গত বছরের ১২ মার্চ হায়দরাবাদ থেকে দিলশাদকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হলেও দুই মাস আগে জামিনে মুক্তি পান তিনি।

আদালতে গুলি করে হত্যা,জামিনে বের হওয়া ধর্ষককে

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুর দেওয়ানি আদালতের সামনে গত শুক্রবার। খবর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের।

নিহত যুবক ওই জওয়ানের মেয়েকে ২০২০ সালে অপহরণের পর ধর্ষণ করেছিলেন বলে অভিযোগ আছে। অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে ওই যুবকের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা বিচারাধীন।

নিহত যুবক বিহারের মুজাফফরপুরের বাসিন্দা। অপহরণ ও ধর্ষণের ওই মামলায় তিনি শুক্রবার গোরক্ষপুর দেওয়ানি আদালতে শুনানিতে অংশ নেওয়ার জন্য এসেছিলেন।

এ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে আদালতে আইনজীবীরা বিক্ষোভ করেন।

আইনজীবী সেখানে পৌঁছানোর আগেই বিএসএফের অবসরপ্রাপ্ত জওয়ান ভগবৎ সিং নিজের লাইসেন্সকৃত পিস্তল দিয়ে দিলশাদের মাথায় গুলি করেন। সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন দিলশাদ। ঘটনাস্থলেই নিহত হন তিনি।

এ ঘটনার পর পুলিশ ভগবৎ এবং তার ছেলেকে গ্রেফতার করেছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

গত বছরের ১২ মার্চ হায়দরাবাদ থেকে দিলশাদকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হলেও দুই মাস আগে জামিনে মুক্তি পান তিনি।

আদালতে গুলি করে হত্যা,জামিনে বের হওয়া ধর্ষককে

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুর দেওয়ানি আদালতের সামনে গত শুক্রবার। খবর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের।

নিহত যুবক ওই জওয়ানের মেয়েকে ২০২০ সালে অপহরণের পর ধর্ষণ করেছিলেন বলে অভিযোগ আছে। অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে ওই যুবকের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা বিচারাধীন।

নিহত যুবক বিহারের মুজাফফরপুরের বাসিন্দা। অপহরণ ও ধর্ষণের ওই মামলায় তিনি শুক্রবার গোরক্ষপুর দেওয়ানি আদালতে শুনানিতে অংশ নেওয়ার জন্য এসেছিলেন।

এ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে আদালতে আইনজীবীরা বিক্ষোভ করেন।

আইনজীবী সেখানে পৌঁছানোর আগেই বিএসএফের অবসরপ্রাপ্ত জওয়ান ভগবৎ সিং নিজের লাইসেন্সকৃত পিস্তল দিয়ে দিলশাদের মাথায় গুলি করেন। সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন দিলশাদ। ঘটনাস্থলেই নিহত হন তিনি।

এ ঘটনার পর পুলিশ ভগবৎ এবং তার ছেলেকে গ্রেফতার করেছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

গত বছরের ১২ মার্চ হায়দরাবাদ থেকে দিলশাদকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হলেও দুই মাস আগে জামিনে মুক্তি পান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.