Friday, September 24, 2021
Homeখাগড়াছড়িখুলে দেয়া হলো খাগড়াছড়ির সবগুলো পর্যটন কেন্দ্র

খুলে দেয়া হলো খাগড়াছড়ির সবগুলো পর্যটন কেন্দ্র

মোহাম্মদ কেফায়েত উল্লাহ, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

কোভিড-১৯ দ্বিতীয় ঢেউয়ের দরুন পাঁচ মাস বন্ধ থাকার পর অবশেষে খুলে দেয়া হয়েছে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার সবগুলো পর্যটন কেন্দ্র। পর্যটন কেন্দ্র খুলে দেয়ায় দেশের 

বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আবার পর্যটকেরা পার্বত্য এ জেলায় দলবেঁধে আসতে শুরু করেছে। তবে এখন আগের তুলনায় পর্যটকদের আনাগোনা অনেক কম।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, প্রতিটি পর্যটন কেন্দ্রে পর্যটকদের স্বাস্থ্য বিধি মানার ওপর গুরত্ব দেয়া হচ্ছে।  মাস্ক না পরে কাউকে পর্যটন কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না। পর্যটন কেন্দ্রসমূহ খুলে দেয়ায় বেশ খুশি পর্যটকরা।

  দীর্ঘদিন ঘরবন্দী থাকার পর একটুখানি ঘর থেকে বের    হওয়ার ফুরসত পেয়ে অনেকেই ঢু মারছে পর্যটন কেন্দ্রেগুলোতে।খাগড়াছড়িতে বেড়াতে আসা পর্যটকদের মনোযোগ থাকে সাজেক, 

 

আলুটিলার গুহা, রিছাং ঝর্ণা, দেবতার পুকুর, জেলা পরিষদ পার্ক,

 কৃষি গবেষণাগার, মায়াবিনী লেক, পানছড়ির শান্তিপুর অরণ্য কুটির, রাবার ড্যাম, দিঘীনালার তইদুছড়া ঝর্ণা, আলুটিলা বটতলির শতবর্ষী বটগাছ, মানিকছড়ির রাজবাড়ি, মাটিরাঙ্গার তাইন্দংয়ের ভগবানটিলা,

 রামগড়ের চা-বাগান  ও জালিয়াপাড়া – মহালছড়ি রোডের পঙখীমুড়াসহ শতাধিক পর্যটন কেন্দ্রের দিকে।

 কুমিল্লা ও ঢাকা থেকে বেড়াতে আসা সাইমুন,  বেলাল হোসেন, সুনন্দা ও সানজিদা জানান, আমরা দীর্ঘ ৫ মাস ঘরবন্দী ছিলাম। কোথাও একটু বেরোনোর  সুযোগ ছিলনা। পর্যটন কেন্দ্রগুলো বন্ধ থাকায় কোথাও যেতে পারিনি। 

লকডাউন প্রত্যাহারের পর প্রথমেই খাগড়াছড়িতে বেড়াতে এসেছি । ঘর থেকে বের হতে পেরে বেশ স্বস্তি অনুভব করছি। 

খাগড়াছড়ির প্রধান প্রধান পর্যটন কেন্দ্রগুলো ঘুরে দেখার ইচ্ছে আছে। আশা করি সবুজে ঘেরা বৃষ্টিভেজা পাহাড়ের নৈসর্গিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারবো। 

আলুটিলা পর্যটন কেন্দ্রের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক দোকানি বলেন, পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ থাকার কারণে আমাদের কী অবস্থা দাঁড়িয়েছে তা আপনাকে ভাষায় বলে বুঝাতে পারবোনা। 

এখান থেকে কীভাবে ঘুরে দাঁড়াবো তা বুঝে আসেনা। এখানকার ব্যবসায়ীদের জন্য সরকারের সহযোগীতা বিশেষ দরকার। 

খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস জানান, অনেক সময় পর্যটকদের মাস্ক না পরার প্রবনতা দেখা যায়। পর্যটন কেন্দ্রে প্রবেশের সময় মুখে মাস্ক থাকে; অথচ ঘোরাঘুরির সময় মাস্ক খুলে ফেলেন। 

পর্যটকদের কাছে অনুরোধ থাকবে এটা যাতে না করে। সেজন্য আমরা ট্যুরিস্ট স্পটগুলোতে ব্যাবস্থা রাখবো। এছাড়া হোটেল মোটেলেও স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য নির্দেশনা আমরা ইতোমধ্যে দিয়েছি।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular