নিউ ইয়র্কে অগ্নিকাণ্ডে ৯ শিশুসহ নিহত ১৯ আবাসিক ভবনে

নিউ ইয়র্কে অগ্নিকাণ্ডে ৯ শিশুসহ নিহত ১৯ আবাসিক ভবনে

বিবিসি জানিয়েছে, স্থানীয় সময় রোববার বেলা ১১টার দিকে ব্রঙ্কসের স্বল্প খরচের অ্যাপার্টমেন্ট ব্লক টুইন পার্কস এর নর্থ ওয়েস্ট ভবনের দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলায় আগুনের সূত্রপাত হয়। ঘর গরম রাখার হিটারের

অগ্নিনির্বাপক বাহিনীর প্রায় ২০০ জন সেখানে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেন। তল্লাশির সময় ১৯ তলা ভবনটির প্রতিটি তলায় লাশ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের কমিশনার ড্যানিয়েল নিগ্রো।

গত ৩০ বছরে অগ্নিকাণ্ডে নিউ ইয়র্কে এতো মৃত্যু আর দেখা যায়নি বলে এনবিসি নিউজকে বলেছেন তিনি।

নিউ ইয়র্ক রাজ্যের গভর্নর ক্যাথি হকল রোববারের ঘটনাকে ‘শোচনীয় এক রাত’ বলে বর্ণনা করে একটি ক্ষতিপূরণ তহবিল গঠনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

নিউ ইয়র্কের ব্রঙ্কসের যে এলাকায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছে সেখানে বহু মুসলিম অভিবাসী বসবাস করে। আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের অধিকাংশই গাম্বিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন বলে ধারণা।

তাদের ইমিগ্রেশন স্ট্যাটাস নিয়ে অস্বস্থিবোধ না করে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন এমন সবাইকে কর্তৃপক্ষের কাছে সহায়তা চাওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন মেয়র অ্যাডামস। তাদের বিস্তারিত তথ্য ইমিগ্রেশন বিভাগের কাছে পাঠানো হবে না বলে নিশ্চিত করেছেন তিনি।

নিউ ইয়র্কে অগ্নিকাণ্ডে ৯ শিশুসহ নিহত ১৯ আবাসিক ভবনে

বিবিসি জানিয়েছে, স্থানীয় সময় রোববার বেলা ১১টার দিকে ব্রঙ্কসের স্বল্প খরচের অ্যাপার্টমেন্ট ব্লক টুইন পার্কস এর নর্থ ওয়েস্ট ভবনের দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলায় আগুনের সূত্রপাত হয়। ঘর গরম রাখার হিটারের

অগ্নিনির্বাপক বাহিনীর প্রায় ২০০ জন সেখানে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেন। তল্লাশির সময় ১৯ তলা ভবনটির প্রতিটি তলায় লাশ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের কমিশনার ড্যানিয়েল নিগ্রো।

গত ৩০ বছরে অগ্নিকাণ্ডে নিউ ইয়র্কে এতো মৃত্যু আর দেখা যায়নি বলে এনবিসি নিউজকে বলেছেন তিনি।

নিউ ইয়র্ক রাজ্যের গভর্নর ক্যাথি হকল রোববারের ঘটনাকে ‘শোচনীয় এক রাত’ বলে বর্ণনা করে একটি ক্ষতিপূরণ তহবিল গঠনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

নিউ ইয়র্কের ব্রঙ্কসের যে এলাকায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছে সেখানে বহু মুসলিম অভিবাসী বসবাস করে। আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের অধিকাংশই গাম্বিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন বলে ধারণা।

তাদের ইমিগ্রেশন স্ট্যাটাস নিয়ে অস্বস্থিবোধ না করে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন এমন সবাইকে কর্তৃপক্ষের কাছে সহায়তা চাওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন মেয়র অ্যাডামস। তাদের বিস্তারিত তথ্য ইমিগ্রেশন বিভাগের কাছে পাঠানো হবে না বলে নিশ্চিত করেছেন তিনি।

নিউ ইয়র্কে অগ্নিকাণ্ডে ৯ শিশুসহ নিহত ১৯ আবাসিক ভবনে

বিবিসি জানিয়েছে, স্থানীয় সময় রোববার বেলা ১১টার দিকে ব্রঙ্কসের স্বল্প খরচের অ্যাপার্টমেন্ট ব্লক টুইন পার্কস এর নর্থ ওয়েস্ট ভবনের দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলায় আগুনের সূত্রপাত হয়। ঘর গরম রাখার হিটারের

অগ্নিনির্বাপক বাহিনীর প্রায় ২০০ জন সেখানে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেন। তল্লাশির সময় ১৯ তলা ভবনটির প্রতিটি তলায় লাশ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের কমিশনার ড্যানিয়েল নিগ্রো।

গত ৩০ বছরে অগ্নিকাণ্ডে নিউ ইয়র্কে এতো মৃত্যু আর দেখা যায়নি বলে এনবিসি নিউজকে বলেছেন তিনি।

নিউ ইয়র্ক রাজ্যের গভর্নর ক্যাথি হকল রোববারের ঘটনাকে ‘শোচনীয় এক রাত’ বলে বর্ণনা করে একটি ক্ষতিপূরণ তহবিল গঠনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

নিউ ইয়র্কের ব্রঙ্কসের যে এলাকায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছে সেখানে বহু মুসলিম অভিবাসী বসবাস করে। আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের অধিকাংশই গাম্বিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন বলে ধারণা।

তাদের ইমিগ্রেশন স্ট্যাটাস নিয়ে অস্বস্থিবোধ না করে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন এমন সবাইকে কর্তৃপক্ষের কাছে সহায়তা চাওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন মেয়র অ্যাডামস। তাদের বিস্তারিত তথ্য ইমিগ্রেশন বিভাগের কাছে পাঠানো হবে না বলে নিশ্চিত করেছেন তিনি।

নিউ ইয়র্কে অগ্নিকাণ্ডে ৯ শিশুসহ নিহত ১৯ আবাসিক ভবনে

বিবিসি জানিয়েছে, স্থানীয় সময় রোববার বেলা ১১টার দিকে ব্রঙ্কসের স্বল্প খরচের অ্যাপার্টমেন্ট ব্লক টুইন পার্কস এর নর্থ ওয়েস্ট ভবনের দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলায় আগুনের সূত্রপাত হয়। ঘর গরম রাখার হিটারের

অগ্নিনির্বাপক বাহিনীর প্রায় ২০০ জন সেখানে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেন। তল্লাশির সময় ১৯ তলা ভবনটির প্রতিটি তলায় লাশ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের কমিশনার ড্যানিয়েল নিগ্রো।

গত ৩০ বছরে অগ্নিকাণ্ডে নিউ ইয়র্কে এতো মৃত্যু আর দেখা যায়নি বলে এনবিসি নিউজকে বলেছেন তিনি।

নিউ ইয়র্ক রাজ্যের গভর্নর ক্যাথি হকল রোববারের ঘটনাকে ‘শোচনীয় এক রাত’ বলে বর্ণনা করে একটি ক্ষতিপূরণ তহবিল গঠনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

নিউ ইয়র্কের ব্রঙ্কসের যে এলাকায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছে সেখানে বহু মুসলিম অভিবাসী বসবাস করে। আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের অধিকাংশই গাম্বিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন বলে ধারণা।

তাদের ইমিগ্রেশন স্ট্যাটাস নিয়ে অস্বস্থিবোধ না করে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন এমন সবাইকে কর্তৃপক্ষের কাছে সহায়তা চাওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন মেয়র অ্যাডামস। তাদের বিস্তারিত তথ্য ইমিগ্রেশন বিভাগের কাছে পাঠানো হবে না বলে নিশ্চিত করেছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *