বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল ভাঙচুরকারী যুবক আটক ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা থেকে

বাংলাদেশ হেফাজত ইসলাম,ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা,বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান,ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি,স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীত,

বাংলাদেশ হেফাজত ইসলামের আন্দোলনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল ভাঙচুরকৃত যুবককে (মো. আরমান আলিফকে (২২) আটক করেছে র‍্যাব।

বাংলাদেশ সফরের আসেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এর উপর ভিত্তি করে হরতালের ডাক দেয় বাংলাদেশ হেফাজত ইসলাম। এই আন্দোলনের সময় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজত ইসলামের কর্মিরা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল ভাঙচুর ও বিভিন্ন জায়গায় হামলা চালায়।

উক্ত আন্দোলনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল ভাঙচুরের জন্য অস্ত্র ও গুলিসহ মো. আরমান আলিফকে (২২) আটক করেছে র‍্যাব। র‌্যাব-১৪ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. তালাত সংবাদ সম্মেলন এই তথ্য নিশ্চিত করেন আজ সোমবার ৫ এপ্রিল বিকেল ৩টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবে।তিনি আরো বলেন,আরমান চুল-দাড়ি কামিয়ে ফেলেছিলেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের চোখ থেকে আড়াল থাকার জন্য। 

তাকে আটক করে র‌্যাব-১৪ এর ভৈরব ক্যাম্পের সদস্যরা ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার বিশ্বরোড এলাকা থেকে ৪ এপ্রিল রোববার গতকাল রাত ৯ টার দিকে।আটককৃত আসামী মো. আরমান আলিফ হলেন শুকুর মিয়ার ছেলে। তিনি নাসিরনগর উপজেলার ফুলকাকান্দি গ্রামের বাসিন্দা বলে জানা য়ায়।

সংবাদ সম্মেলনে লে. কর্নেল আবু নাঈম মো. তালাত বলেন,বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ভাঙচুরের কাজে ব্যবহৃত শাবলটি উদ্ধার করা হয় তাঁর দেওয়া তথ্যমতে জেলা শহরের কাজীপাড়া মহল্লার ভাড়াবাসা থেকে।তাঁর বাসা থেকে আরো পাওয়া যায় চার রাউন্ড গুলিও, একটি পিস্তল এবং দুটি ম্যাগজিন।

তিনি এই সময় আরো বলেন,আসামীকে শনাক্ত করা হয়েছে ছবি ও ভিডিও ফুটেজ দেখে।স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে জাতির জনকের ম্যুরাল ভাঙচুরের মাধ্যমে বাংলাদেশের সকল মানুষকে অবমূল্যায়নের দিকটি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে কাজ করেছে র‌্যাব। এই সময় উপস্থিত ছিলেন ভৈরব ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার রফিউদ্দিন মো. যোবায়ের।

Leave a Reply

Your email address will not be published.