দেশে আরও পাঁচ ছাত্র গ্রেপ্তার এলএসডি বিক্রি-সেবনে জড়িত থাকায়

এলএসডি,বিশ্ববিদ্যালয়,ডিএমপির মতিঝিল বিভাগ,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়,মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর,

পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে আরও পাঁচ  বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকে লাইসার্জিক অ্যাসিড ডায়েথিলামাইড (এলএসডি) ব্যবসা ও সেবন জড়িত সন্দেহে। তাদের গ্রেপ্তার করা হয় গতকাল শনিবার রাতে একটি অভিযানের মাধ্যমে। 

 এ তথ্য জানিয়েছেন ডিএমপির মতিঝিল বিভাগের উপকমিশনার মো. আ. আহাদ আজ রোববার সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনে। তিনি বলেছেন,এলএসডি বিক্রি করে আসছে এমন ১৫টি গ্রুপ রয়েছে। গ্রুপগুলো গত এক বছর ধরে মাদক সেবন ও এলএসডি বিক্রি সাথে জড়িত। তাদের আটকের জন্য কাজ করছে পুলিশ। 

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো,বি এম সিরাজুস সালেকীন (২৪),নাজমুল ইসলাম (২৪),নাজমুস সাকিব (২০),এস এম মনওয়ার আকিব (২০) ও সাইফুল ইসলাম সাইফ (২০)। সবাই হচ্ছে রাজধানীর বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। 

দেশে এলএসডি কারবারের সন্ধান পায় পুলিশ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনা তদন্তে নেমে। ডিএমপির বিভিন্ন ইউনিট এই ভয়ঙ্কর মাদকের সন্ধানে অভিযান চালাচ্ছে এর পর থেকে। ডিএমপির গোয়েন্দা পুলিশ প্রথম তিনজনকে গ্রেপ্তার করে। তাদের আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। শনিবার রাতে পুলিশ অভিযানে নামে রামপুরা,শাহজাহানপুর, বাড্ডা ও ভাটারা এলাকায়।

ডিসি আহাদ আরও বলেন,গত এক বছর ধরে বিক্রির ও সেবনের সাথে জড়িত। তারা এই ব্যবসার কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিল অনলাইনের মাধ্যমে। এলএসডি সেবন শুরু করে তারা অনলাইন বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আকৃষ্ট হয়ে। এখন তারা বিক্রি ও সেবন করে চলছে  বিদেশ থেকে এলএসডি সংগ্রহ করে। তারা মূলত এলএসডি নিয়ে আসত ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে। 

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ২০১৯ সালে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো জানিয়েছিল এলএসডির একটি চালান জব্দ করার খবর।২০১৯ সালের ১৫ জুলাই অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা রাজধানীর মহাখালী ডিওএইচএসের একটি বাড়ি থেকে পাঁচ মিলিলিটার তরল এলএসডি ও এলএসডির ২৫টি স্ট্রিপ (ব্লট) উদ্ধার করে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.