রাজশাহী সিটি মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন করোনা পজিটিভ

রাজশাহী সিটি মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন করোনা পজিটিভ

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটনের শরীরে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। আজ শনিবার সকালে তিনি মুঠোফোনে করোনা পজিটিভ হওয়ার খবর পান। তবে শারীরিকভাবে সুস্থ রয়েছেন তিনি।

রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহসানুল হক আজ বিকেলে প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, মেয়র খায়রুজ্জামান ৯ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে ঢাকায় যান। ১১ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন। এর পর থেকে ঢাকায় আওয়ামী লীগের বিভিন্ন দলীয় কার্যক্রমে অংশ নিয়েছেন তিনি। একটি গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠানে অংশ নিতে গতকাল শুক্রবার তিনি করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়েছিলেন। শরীরে কোনো উপসর্গ না থাকলেও করোনা পজিটিভ আসে তাঁর।

আহসানুল হক আরও বলেন, করোনার গত দুই বছরে মেয়র সিটি করপোরেশন এলাকায় ত্রাণ বিতরণ করেছেন। রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ বা সিটি করপোরেশনের কোনো কাজে বিঘ্ন ঘটতে দেননি তিনি। সব ধরনের উন্নয়ন কার্যক্রম তিনি তদারক করেছেন, মানুষের দ্বারে দ্বারে গিয়েছেন। ত্রাণসামগ্রী পাঠিয়ে দিয়েছেন সুবিধাভোগীদের ঘরে ঘরে। তিনি সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন।

 

 

রাজশাহী সিটি মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন করোনা পজিটিভ

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটনের শরীরে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। আজ শনিবার সকালে তিনি মুঠোফোনে করোনা পজিটিভ হওয়ার খবর পান। তবে শারীরিকভাবে সুস্থ রয়েছেন তিনি।

রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহসানুল হক আজ বিকেলে প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, মেয়র খায়রুজ্জামান ৯ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে ঢাকায় যান। ১১ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন। এর পর থেকে ঢাকায় আওয়ামী লীগের বিভিন্ন দলীয় কার্যক্রমে অংশ নিয়েছেন তিনি। একটি গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠানে অংশ নিতে গতকাল শুক্রবার তিনি করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়েছিলেন। শরীরে কোনো উপসর্গ না থাকলেও করোনা পজিটিভ আসে তাঁর।

আহসানুল হক আরও বলেন, করোনার গত দুই বছরে মেয়র সিটি করপোরেশন এলাকায় ত্রাণ বিতরণ করেছেন। রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ বা সিটি করপোরেশনের কোনো কাজে বিঘ্ন ঘটতে দেননি তিনি। সব ধরনের উন্নয়ন কার্যক্রম তিনি তদারক করেছেন, মানুষের দ্বারে দ্বারে গিয়েছেন। ত্রাণসামগ্রী পাঠিয়ে দিয়েছেন সুবিধাভোগীদের ঘরে ঘরে। তিনি সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *