স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ফারজানা গ্রেফতারপুলিশের ওপর হামলা,

স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ফারজানা গ্রেফতারপুলিশের ওপর হামলা,

নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার ঘোষনগর ও নজিপুর ইউনিয়নের তিনটি কেন্দ্রে ভোট গণনা নিয়ে পুলিশের ওপর হামলা ও পুলিশ ভ্যানে অগ্নিসংযোগ ও অস্ত্র ছিনতাইয়ের ঘটনায় পত্নীতলা থানায় মামলা হয়েছে। এতে ১১৩ জনের নামোল্লেখ ও অজ্ঞাত দুই থেকে আড়াই হাজার ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে।
কেন্দ্রে ভোটগ্রহণের পর গণনা ও ফলাফল ঘোষণা বিলম্বিত এবং সংশ্লিষ্ট ভোটকেন্দ্রের প্রিসাডিং কর্মকর্তারা ফলাফল ঘোষণা না করেই কেন্দ্র ত্যাগ করার চেষ্টা করে। এ সময় কেন্দ্রগুলোর আশপাশে থাকা কয়েক হাজার মানুষ পুলিশ, আনসার ও ভোটগ্রহণের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তাদের পথ রোধ করে।

ঘটনার সময় ভোটের দায়িত্বে থাকা স্ট্রাইকিং ফোর্সের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক আব্দুল গণি ও পত্নীতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পুলিশ সদস্যদের নিয়ে তাদেরকে উদ্ধার করতে যান। উত্তেজিত জনতা ঘোষনগর কেন্দ্রের কাছে একটি পুলিশ পিকআপ ও রিকুইজিশন করা একটি মাইক্রোবাসে আগুন ধরিয়ে দেয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে শটগান থেকে ২৮ রাউন্ড গুলি ছোড়ে।

সংঘর্ষের সময় একজন পুলিশ সদস্যের কাছ থেকে একটি শটগান ও ২০ রাউন্ড গুলি ছিনতাই করে দুবৃর্ত্তরা। রঘুনাথপুর ভোটকেন্দ্রের কাছে কর্তব্যরত ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা, পুলিশ ও আনসার সদস্যদের উদ্ধার করতে গিয়ে পুলিশের স্ট্রাইকিং ফোর্সের সদস্যদের সঙ্গে স্থানীয় জনগণের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ১১১ রাউন্ড গুলি নিক্ষেপ করে বলে এজহারে উল্লেখ করা হয়।

পত্নীতলা থানার ওসি (তদন্ত) হাবিবুর রহমান বলেন, পুলিশের ওপর হামলা, গাড়িতে অগ্নিসংযোগ ও অস্ত্র ছিনতাইয়ের অভিযোগে বৃহস্পতিবার ১১৩ জনের নামোল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও অনেককে আসামি করা হয়েছে। ওই মামলায় ঘোষনগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ফারজানা পারভীনকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। তাকে রাতেই ঘোষনগর ভোট কেন্দ্রে এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশের কাছ থেকে ছিনতাই হওয়া অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার এবং এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত বাকি আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *