সকল রোগ থেকে শরীরকে মুক্ত রাখতে হাঁটুন সূর্যালোকে(health tips for Bangla)

ভিটামিন ডি,ফসফরাস,ক্যান্সার,health tips for Bangla,Winter health tips,summer health tips.

ভিটামিন এর উৎস হলো সূর্য। সূর্যের আলো আমাদের ত্বকের গভীর স্তরে গিয়ে কলেস্টেরল থেকে ভিটামিন ডি-৩ (কলিক্যালসিফেরল) তৈরি করে থাকে।সূর্য মানুষকে বিভিন্ন ধরণের রোগ থেকে মুক্তি দেয়।

ভিটামিন ‘ডি’ মানুষের শরীরে গিয়ে  ক্যালসিয়াম থেকে শুরু করে ফসফরাস নিয়ন্ত্রণ করে হাড় ও মাংসপেশি এবং দাঁতের গঠনসহ শক্তিশালী করে তুলে।নানা ধরনের রোগ থেকে মানুষ বেছো থাকার জন্য নিয়মিত সূর্যে হাঁটলে ভাল হয়।সাভাবিক ভাবে অনেক মানুষের ভিটামিন-ডি এর অভাব হয়ে থাকে এই অভাব দূর করার জন্য সূর্যে হাঁটা উচিত। 

বাংলাদেশ কিছু সংখ্যাক মানুষ শ্বাসকষ্ট,ক্যান্সার,ও অ্যাজমা এবং হাইপ্রেশার  হয়ে থাকে।কিন্তু বিশেষ করে হয়ে থাকে বেশি ভাগডায়াবেটিস। এটি শতকরা ৯৯% মানুষের হয়।উল্লিখিত রোগ থেকে মানুষ তখন ঐ মুক্তি পাওয়া সম্ভবনা থাকে যখন রক্তে পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন ডি থাকে।

বিশেষজ্ঞদের গবেষণায় বেরিয়ে আসে ব্যাকটেরিয়া জীবাণুবাহিত রোগের ও মানুষের  ফুসফুসের ভাইরাস জনিত বড় বড় রোগকে ঠেকাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

ভিটামিন ‘ডি’ ও জীবননাশক ভাইরাস (Winter health tips)

ভিটামিন এর অভাবে বিভিন্ন ধরণের ভাইরাসে মানুষ আক্রমণ হতে পারে এমন কি জীবননাশক ভাইরাসে,ও আক্রমণ হতে পারে।এই সকল কিছু নির্ভর করে থাকে প্রাকৃতিক পরিবেশর উপর।কঠিন ভাইরাস মানুষের শরীরকে ঠান্ডা করে পেলে এবং জীবনকে ঝুকির মধ্যে পেলে দেয়।

ফুসফুস তীব্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে এমন একটি হল সাইটোকাইন ঝড়।এটি ভাইরাস জনীত কারণে হয়ে থাকে।মানুষকে মৃত্যু খুলে ডেলে দিতে বেশি সময় লাগে না। সাইটোকাইন ঝড় কারণে অক্সিজেন স্বল্পতা  দেখা দেয় এবং পরে মাল্টি অর্গান ফেইলর হয়ে মৃত্যু হয়। 

এটি একটি ছোঁয়াছো রোগ তাই সর্তকতা অবলম্বন করে চলা পেরা করতে হবে।আক্রান্ত মানুষের মধ্যে শতকরা ৮০ জন মানুষ হাসপাতালে ভর্তি না হলে,ও চলে।আগের তুলনায় বর্তমনে মৃত্যু সংখ্যা অনেক বেড়েছে ২-৩ শতাংশ করে।

ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গেনাইজেশন পরামর্শ মতে সকল মানুষকে  সমৃদ্ধ খাবার খাওয়ার কথা বলে থাকে।কারণ ভিটামিন মানুষের সকল কঠিন রোগের সাথে মোকাবিলা করতে পারে।যেন মানুষের শরীরে এই রকম ভিটামিন এর অভাব না হয় তার জন্য এই রকম পরামর্শ দিয়ে থাকে সকল চিকিৎসক।

প্রতিদিন নিয়মিত সকালে ১০ টার পর থেকে ১২ টা পর্যন্ত সূর্যে হাঁটলে মানুষের যে ভিটামিন ঘাটতি থাকে সেটা পূরণ হয়।ইউরোপে একটি গবেষণায় দেখা গেছে,মহামারীতে মৃত্যু হওয়া সকল মানুষের মধ্যে ভিটামিন ডি অভাব ছিল।

ভিটামিন ‘ডি’ কীভাবে পাবেন প্রর্যাপ্ত পরিমাণে(summer health tips)

★দুধ ও ডিমে অনেক পরিমাণে ভিটামিন ডি থাকে।প্রতিদিন খাবারে ভিটামিন ডি ও মিনারেল খুবই জরুরি। বর্তামনে ভিটামিন ট্যাবলেট হয়ে গেছে।অতি সহজেই তা পাওয়া যায়।ক্যালসিয়াম ট্যাবলেটের সঙ্গে ভিটামিন ডি-৩ মিশ্রিত থাকে। 

★ ভিটামিন ডি’র অভাব দূর করতে প্রতিদিন সকালে কিছু সময় বাহিরে সূর্যে হাঁটার অভ্যাস করতে হবে সকলকে।ছোট বড় সবাইকে এটি মেবে চললে তাহলে কঠিম রোগ থেকে মুক্ত থাকতে পাবরে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.